সোমবার, ডিসেম্বর ৩, ২০১৮, ১১:১৪ অপরাহ্ণ

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক : সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ আরো একমাস বাড়ানো হয়েছে। পরিবর্তীত মেয়াদে আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দিয়েছে দেশটির সরকার।
এর আগে গত ১ আগস্ট থেকে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত আরব আমিরাত সরকারের তিন মাসব্যাপী সাধারণ ক্ষমা ঘোষণার মেয়াদ ছিল। সে মেয়াদ শেষে আরো এক মাস বাড়িয়ে ১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা বেঁধে দিয়েছিলো দেশটির সরকার।
খালিজ টাইমসের খবরে বলা হয়, সংযুক্ত আরব আমিরাতের জাতীয় দিবস উপলক্ষে সাধারণ ক্ষমা আরো একমাস বাড়ানো হয়েছে। আগামীকাল মঙ্গলবার ৪ ডিসেম্বর থেকে অ্যাপ্লিকেশন প্রক্রিয়াকরণ শুরু হবে।
গত আগস্টে তিন মাসের জন্য সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা করে আমিরাত সরকার। সে অনুযায়ী গত অক্টোবরে ওই সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও তা এক মাসের জন্য বৃদ্ধি করে দেশটির কর্তৃপক্ষ। সেক্ষেত্রে পরিবর্তিত এই সময়সীমা অনুযায়ী গত ৩০ নভেম্বর ওই সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু আমিরাতের জাতীয় দিবস উপলক্ষে তা আরও এক মাস বাড়ানো হয়েছে। আর নতুন এই সময়সীমা ২ ডিসেম্বর থেকে শুরু হয়েছে, যার মেয়াদ হবে এক মাস।
শারজাহ অভিবাসনের একজন জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা বলেন, আবেদনকারীদের অবস্থান ও চাকরির সুযোগ সংশোধন করার ব্যবস্থা করে দিতে ইচ্ছুক আমিরাতের নেতৃত্ব।
ইতোমধ্যেই শুরু হওয়া প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে সাধারণ ক্ষমা চাওয়া ব্যক্তিদের আবেদনগুলো খতিয়ে দেখছে অভিবাসন সেন্টারগুলো। নতুন করে সময় বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে এসব আবেদনকারী তাদের প্রক্রিয়াগুলো শেষ করতে পারবেন।
কূটনৈতিক মিশনগুলো জানিয়েছে, তারা কর্মকর্তাদের সঙ্গে সমন্বয় করে কাজ করছেন এবং নতুন এই সময়ের কারণে আইন অমান্যকারী ব্যক্তিরা তাদের অবস্থান সংশোধন করার সুযোগ পাবেন।
হাশিম নামের বাংলাদেশি এক শ্রমিক বলেন, তিনি সময়বৃদ্ধির খবরে অনেক খুশি। কেননা যতটা সম্ভব সবাই তাদের অবস্থান পরিবর্তন এবং সাধারণ ক্ষমা পেতে চান। কিন্তু পাসপোর্ট না পাওয়ায় অনেকেই সাধারণ ক্ষমার এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে পারেননি।
ইথিওপিয়ার একজন গৃহকর্মী তেগেজ বলেন, তিনি অপেক্ষা করেও তার পাসপোর্ট পাননি এবং এই সময়বৃদ্ধির ঘোষণায় তিনি খুশি। তিনি বলেন, এখন আমি বৈধ হতে পারবো।