উত্তেজনা বাড়ছে উত্তর কোরিয়া এবং আমেরিকার মধ্যে

ডেস্ক: ক্রমশ উত্তেজনা বাড়ছে উত্তর কোরিয়া এবং আমেরিকার মধ্যে। রীতিমত একে-অপরকে পরমাণু হামলার হুঁশিয়ারি দিয়ে যাচ্ছে। এই অবস্থায় চরম আশঙ্কার কথা প্রকাশ করলেন মার্কিন রিপাবলিকান দলের সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম। তার মতে, এই বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালেই উত্তর কোরিয়া এবং আমেরিকার মধ্যে সম্পর্ক বিপজ্জনক পরিস্থিতিতে মোড় নিতে চলেছে।
মার্কিন টেলিভিশন সিবিএসকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে গ্রাহাম বলেন, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উচিত উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপ নেওয়া। উত্তর কোরিয়ার উপর চাপ বাড়ানোর ক্ষেত্রে এটাই বড় সিদ্ধান্ত হবে বলে মনে করেন তিনি।
তিনি শঙ্কা প্রকাশ করেন, উত্তর কোরিয়া তার সপ্তম পরমাণু বোমার পরীক্ষা চালালে ৭০ ভাগ সম্ভাবনা রয়েছে যে আগামী ১২ মাসের মধ্যে ওয়াশিংটন, পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে সামরিক ব্যবস্থা নেবে। ফলে, পরমাণু কর্মসূচি থেকে উত্তর কোরিয়াকে বিরত রাখতে পিয়ংইয়ংয়ের বিরুদ্ধে সামরিক শক্তি প্রয়োগ করার মতো একটি মাত্র পথই খোলা রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন সিনেটর গ্রাহাম।
গ্রাহম বলেন, ২০১৮ সাল হতে যাচ্ছে মার্কিন ভূখণ্ডে আঘাত হানার উত্তর কোরিয়ার সক্ষমতাকে ধ্বংস করে দেওয়ার বছর। উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে উপযুক্ত সামরিক ব্যবস্থা না নেওয়া হলে কেবল নিষেধাজ্ঞা দিয়ে কোনও কাজ হবে না বলেও সতর্ক করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *