মঙ্গলবার, আগস্ট ২১, ২০১৮, ৮:১৫ অপরাহ্ণ

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা : পুরান ঢাকার নির্জন সাবেক কেন্দ্রীয় কারাগারের ভেতরেই ঈদ উল ফিতরের মতো ঈদ উল আযহাও কাটাতে হচ্ছে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে। যদিও এই অভিজ্ঞতা তার জন্য নতুন নয়। এক দশক আগে এক-এগারোর সময় রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের প্রেক্ষাপটে গ্রেফতার হয়ে সংসদ ভবন এলাকার সাব জেলে ঈদ উল ফিতর ও ঈদ উল আযহা কাটিয়েছিলেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

সে সময় খালেদা জিয়ার মতো বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনারও দুটি ঈদ কাটাতে হয়েছিল কারাবন্দি অবস্থায়। পাশাপাশি ভবনে ছিলেন দুইজন। ঈদ উল ফিতরের মতো এই ঈদেও বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার একমাত্র সঙ্গী থাকবেন গৃহকর্মী ফাতেমা। তবে ঈদে পরিবার ও স্বজনদের সাক্ষাৎ করার কথা আছে বিএনপি প্রধানের সঙ্গে।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এবারের ঈদে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী, সন্তানের সাক্ষাৎ করার কথা আছে। গত ১৩ আগস্ট তারা লন্ডন থেকে দেশে আসেন। ঢাকায় এসে তারা কারাগারে গিয়ে বিএনপি নেত্রীর সাথে দেখাও করে এসেছেন।

কারাসূত্রে জানা গেছে, ঈদের দিন খালেদা জিয়ার খাবারের তালিকায় থাকছে বিশেষ আয়োজন। এসব খাবার কারাগার থেকেই সরবরাহ করা হবে, যা বিএনপির চেয়ারপারসনের জন্য বিশেষভাবে প্রস্তুত করা হবে। কারা চিকিৎসকদের পরামর্শ অনুযায়ীই রান্না করা হবে খাবারগুলো।

সূত্র আরো জানায়, ঈদের দিন পরিবারের সদস্যদের আবেদনের প্রেক্ষিতে খালেদা জিয়ার সঙ্গে তারা দেখা করতে পারবেন। তাদের আনা খাবারও খেতে পারবেন, তবে তা পরীক্ষা-নিরীক্ষার পরই তাকে সরবরাহ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ৮ ফেব্রুয়ারি বেগম খালেদা জিয়াকে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়। ঢাকার ৫ নম্বর বিশেষ জজ আদালত এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পরপরই বেগম খালেদা জিয়াকে আদালত থেকে নাজিমুদ্দিন রোডের পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। বর্তমানে তিনি সেখানেই রয়েছেন।