রবিবার, জানুয়ারি ৬, ২০১৯, ১১:৩২ অপরাহ্ণ

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা : তীরে গিয়ে তরী ডুবল খুলনা টাইটানসের। দুর্দান্ত খেলেও শেষ পর্যন্ত ৮ রানের জন্য হেরে গেল মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের নেতৃত্বাধীন দলটি।
খুলনাকে হারিয়ে জয়ে ফিরল রংপুর রাইডার্স। দলের জয়ে ব্যাট হাতে ৫২ বলে ৭৬ রান করেন রাইলি রুশো। এছাড়া ৪০ রান করেন রবি বোপারা।
৬৫ রানে ৩ উইকেট পড়ে গেলে রাইলি রুশো এবং রবি বোপারা চতুর্থ উইকেটে ১০৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়ে দলকে স্মানজনক স্থানে পৌঁছে দেন। তাদের কল্যাণে ৩ উইকেটে ১৬৯ রানের চ্যালেঞ্চিং স্কোর গড়তে সক্ষম হয় রংপুর। দলের জয়ে বাকি কাজ সম্পূর্ণ করেন বোলাররা। এর আগে গতকাল শনিবার বিপিএলের উদ্বোধনী ম্যাচে নিজের প্রথম খেলায় মুশফিকুর রহিমের চিটাগাং ভাইকিংসের বিপক্ষে ৩ উইকেটে হেরে যায় রংপুর।
রোববার মিরপুর শেরেবাংলায় বিপিএলের চতুর্থ ম্যাচে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করে ৩ উইকেটে ১৬৯ রান সংগ্রহ করে রংপুর।
জবাবে উদ্বোধনীতে ৯০ রানের জুটি গড়ে খুলনা টাইটানসকে জয়ের স্বপ্ন দেখান পল স্টারলিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকী। এরপর ৫০ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে কার্য্যত ছিটকে যায় খুলনা।
শেষ দিকে জয়ের জন্য খুলনার প্রয়োজ ছিল ১৮ বলে ৩৫ রান। হাতে ছিল ৭ উইকেট। ১৮তম ওভারে মাত্র ৫ রান দিয় মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের উইকেট তুলে নেন ফরহাদ রেজা।
ঠিক পরের ওভারের প্রথম বলে ফেরেন উইকেটে সেট ব্যাটসম্যান আরিফুল হক। তিন বলে দুই উইকেট হারিয়ে চাপের মধ্যে পড়ে যাওয়া খুলনা, এরপর আর সেভাবে লড়াই করতে পারেনি। শেষ বলে জয়ের জন্য খুলনার প্রয়োজন ছিল ১০ রান। ফরহাদ রেজার বলে ১ রানের বেশি আদায় করে নিতে পারেননি জহুরুল ইসলাম। ৮ রানে হেরে যায় খুলনা।
জুনায়েদের বিদায়ে ভাঙল ৯০ রানের উদ্বোধনী জুটি
১৭০ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করেছে খুলনা টাইটানস। পল স্টারলিং ও জুনায়েদ সিদ্দিকী উদ্বোধনী জুটিতে ৯০ রান যোগ করেন। তবে উড়ন্ত সূচনার পরও ব্যাটিংবিপর্যয়। মাত্র ১৮ রানে ৩ উইকেট হারিয়েছে খুলনা।
৩০ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ৩৩ রান করে ফেরেন জুনায়েদ সিদ্দিকী। মাত্র ১ রান করে শফিউল ইসলামের গতির শিকার হন নাজমুল হোসেন শান্ত।
ইনিংসের শুরু থেকে দুর্দান্ত ব্যাটিং করে যাওয়া আয়ারল্যান্ডের অলরাউন্ডার পল স্টারলিংকে সাজঘরে পাঠান রংপুর রাইডার্সের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। তার আগে ৪৬ বলে আট চার ও এক ছক্কায় ৬১ রান করেন স্টারলিং।
রংপুরের সংগ্রহ ৩ উইকেটে ১৭০ রান
রাইলি রুশো এবং রবি বোপারার ব্যাটে ভর করে তিন উইকেটে ১৬৯ রানের চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়েছে রংপুর রাইডার্স। ৬৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়া দলকে সম্মানজনক পজিশনে পৌঁছে দিতে দুর্দান্ত ব্যাটিং করেন রুশো-বোপারা। তাদের দায়িত্বশীল ব্যাটিংয়ে বিপর্যয় এড়িয়ে চ্যালেঞ্জিং স্কোর গড়ে রংপুর।
দলের হয়ে ৫২ বল খেলে আট চার ও দুই ছক্কায় অপরাজিত ৭৬ রান করেন রংপুরের দক্ষিণ আফ্রিকান ওপেনার রুশো। এছাড়া ২৯ বলে তিন চার ও এক ছক্কায় ৪০ রান করে অপরাজিত থাকেন ইংলিশ ক্রিকেটার রবি বোপারা।
বিপিএলের চলতি ষষ্ঠ আসরে দ্বিতীয় ব্যাটসম্যান হিসেবে ফিফটি তুলে নিয়েছেন রাইলি রুশো। রংপুর রাইডার্সের এই ওপেনার খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে ৭৬ রান করেন।
গতকাল শনিবার রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে ঢাকা ডায়নামাইটসের আফগান ওপেনার হজরতউল্লাহ জাজাই চলতি বিপিএলের প্রথম ফিফটি (৪১ বলে ৭৮ রান) করেন।
রোববার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে খুলনা টাইটানসের বিপক্ষে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ৬৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় রংপুর রাইডার্স। এরপর রবি বোপারাকে সঙ্গে নিয়ে দলের হাল ধরেন ওপেনার রাইলি রুশো। চতুর্থ উইকেটে তারা ১০৪ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন।
টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে দলীয় ১৮ রানেই ফেরেন ওপেনার মেহেদী মারুফ (৫)। তিনে ব্যাটিংয়ে নেমে সুবিধে করতে পারেননি ইংলিশ ওপেনার অ্যালেক্স হেলস। আফগানিস্তানের চায়নাম্যান বোলার জহির খানের ঘূর্ণি বলে বিভ্রান্ত হওয়ার আগে ৯ বলে ১৫ রান করেন হেলস।
চার নম্বর পজিশনে খেলতে নেমে প্রত্যাশিত ব্যাটিং করতে পারেননি জাতীয় দলের ক্রিকেটার মোহাম্মদ মিঠুন। গত বিপিএলে ২৯.৯০ গড়ে ৩২৯ রান করা মিঠুন, এদিন ফেরেন ১৭ বলে ১৯ রান করে।
৯.৫ ওভারে ৬৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে পড়া দলকে টেনে তুলেন রাইলি রুশো ও রবি বোপারা।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
রংপুর রাইডার্স: ২০ ওভারে ১৬৯/৩ (রুশো ৭৬*, বোপারা ৪০*)। খুলনা টাইটানস: ২০ ওভারে ১৬১/৫ (স্টারলিং ৬১, জুনায়েদ ৩৩, মাহমুদউল্লাহ ২৪)।
ফল: রংপুর ৮ রানে জয়ী।
ম্যাচসেরা: রাইলি রুশো (রংপুর রাইডার্স)।