টাইগারদের নিয়ে আশাবাদী রোডস

নিউজ মিডিয়া ২৪:ঢাকা: ওয়েস্ট ইন্ডিজে অসামান্য এক সফর শেষে বৃহস্পতিবার দেশে ফিরেছে বাংলাদেশ। টেস্ট সিরিজ হারলেও ওয়ানডে ও টি-টুয়েন্টি সিরিজের ট্রফি নিয়েই বাংলাদেশে ফিরেছে টাইগাররা। আর এই সিরিজটি ছিল বাংলাদেশের নব নিযুক্ত কোচ স্টিভ রোডসের প্রথম মিশন। সেই মিশনে সফল হয়ে দারুণ খুশি তিনি। দেশে ফিরে জানালেন, দলকে নিয়ে আশাবাদী তিনি।
ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি টাইগারদের। সিরিজের দুইটি টেস্টেই হেরেছে শোচনীয় ভাবে। দুই টেস্ট মিলে ৫ দিনও ব্যাট করতে পারেননি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। কিন্তু নিজেদের প্রিয় ফরম্যাট ওয়ানডে সিরিজে এসেই বদলে যায় বাংলাদেশ। মাশরাফী বিন মোর্ত্তজার নেতৃত্বে সিরিজ ২-০ ব্যবধানে জিতে নেয় বাংলাদেশ। তারপর টি-টুয়েন্টি সিরিজটিও জিতে নেয় একই ব্যবধানে।

বাংলাদেশের এই ঘুরে দাঁড়ানোয় আনন্দিত কোচ। তিনি বলেছেন, ‘টেস্ট সিরিজটা বেশ কঠিন ছিল। আমরা খুব বেশি ব্যাটিং করতে পারিনি। কিন্তু ছেলেরা যেভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে তাতে আমি খুবই গর্বিত। ওয়ানডে সিরিজ জয়টা ছিল আমাদের জন্য স্বপ্নের। আর টি-টুয়েন্টি সিরিজ জয় ছিল বিস্ময়কর। দ্বিতীয় ও তৃতীয় ম্যাচে আমরা সত্যিকার অর্থেই ভালো খেলেছি। দুই সিরিজের ট্রফি জয়ে আমি সত্যি আনন্দিত। আমি মনে করি, এটা দলকে আত্মবিশ্বাস যোগাবে। জয়ের চেয়ে ভালো কিছু নেই। আমরা আগে থেকেই ওয়ানডেতে ভালো খেলি। তাই আমরা আশাবাদী।’

সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় টি-টুয়েন্টিতে ৩২ বলে ৬১ রানের এ বিস্ফোরক ইনিংস খেলেন লিটন দাস। যেটি এ সংস্করণে তার প্রথম হাফ সেঞ্চুরিও। লিটন দাসের এই ইনিংসে ভর দিয়েই বড় রানের ভিত্তি পায় বাংলাদেশ। ফাইনালে ম্যাচসেরাও হন ২৩ বছর বয়সী এই তরুণ ক্রিকেটার। কোচ রোডসের কণ্ঠেও তাই লিটনের প্রশংসা, ‘লিটন দাসের খেলায় আমি খুবই খুশি। ফাইনালে সে চমৎকার খেলেছে।’

এদিকে টেস্টের বিপর্যয় নিয়েও কথা বলেছেন কোচ। দুই টেস্টেই বাংলাদেশের ব্যাটিং ব্যর্থতা ছিল চোখে পড়ার মতো। রোডস জানালেন, ‘টেস্টে আমরা সেভাবে ব্যাট করতে পারিনি। আমি মনে করি, আমাদের আরো গোছানো এবং টেস্ট ম্যাচের ব্যাটিংয়ে উন্নতি করতে হবে। কিন্তু আমাদের ভালো মানের খেলোয়াড় আছে। শুধু কন্ডিশন ও প্রতিপক্ষের সাথে আরো দ্রুত খাপ খাইয়ে নিতে হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *