পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী বার্তা দিতে মাওয়া যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা : দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার মানুষের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন সেতু এবং সরকারের অন্যতম মেগাপ্রকল্প ‘পদ্মা সেতু’ কবে নাগাদ উদ্ধোধন হবে; সে উদ্ধোধনের সময়সীমা জনগণের কাছে স্পষ্ট করতে জাতীয় নির্বাচনের পূর্বে জনসভায় বার্তা দেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
দেশি-বিদেশি বিভিন্ন চক্রান্তের পথ পেরিয়ে প্রমত্তা পদ্মায় এখন দৃশ্যমান পদ্মা সেতু। ২০১৮ সালের মধ্যে সেতুর কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলেও বিভিন্ন কারণে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হওয়া নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। তাই আগামী জাতীয় নির্বাচনের আগে পদ্মা বহুমুখী সেতু উদ্ধোধনের সময়সীমা জনগণের সামনে স্পষ্ট করবেন। আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক নেতারা জানান, রোববার (১৪ অক্টোবর) সকালে মাওয়া সফরে আসছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি হেলিকপ্টারযোগে মাওয়ার দোগাছির পদ্মা সেতুর সার্ভিস এরিয়ার-১-এর মাঠে নামবেন। এরপর গাড়িতে করে প্রকল্প এলাকায় যাবেন। মাওয়া থেকে গিয়ে বিকেলে মাদারীপুরের শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ফেরিঘাটে জনসভায় ভাষণ দেবেন। প্রধানমন্ত্রী এ সফরে পদ্মা বহুমুখী সেতুর নামফলক উন্মোচন করবেন, সেতুর ৬০ শতাংশ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন, রেল সংযোগ প্রকল্পের নির্মাণকাজসহ আরও কয়েকটি প্রকল্পের উদ্ধোধন করবেন। এরপর পদ্মাসেতুর মাওয়া টোলপ্লাজা সংলগ্ন গোলচত্বরে সুধী সমাবেশেও অংশ নেবেন।
প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে পাঠানো কার্যসূচি থেকে জানা যায়, রোববার সকাল সাড়ে দশটায় মুন্সীগঞ্জের মাওয়ার উদ্দেশ্যে রাজধানীর তেজগাঁও বিমানবন্দর থেকে রওনা করবেন। সকাল এগারটায় মাওয়া প্রান্তের পদ্মা সেতুর নামফলক উম্মোচন, এন-৮ মহাসড়কের ঢাকা-মাওয়া এবং পাঁচ্চর-ভাঙ্গা অংশের অগ্রগতি পরিদর্শন, পদ্মা রেল সংযোগ প্রকল্পের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন, মূল নদীশাসন কাজ সংলগ্ন স্থায়ী নদীতীর প্রতিরক্ষামূলক কাজের শুভ উদ্বোধন ও মোনাজাত এবং পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি পরিদর্শন করবেন। এরপর এগারটা ১৫ মিনিটে মাওয়া টোলপ্লাজা সংলগ্ন গোলচত্বরে সুধি সমাবেশে যোগ দেবেন।
এরপর দুপুর ২টা ৪৫ মিনিটের দিকে জাজিরা প্রান্তে পদ্মা সেতুর নামফলক উম্মোচন, ‘পদ্মা সেতু রেল সংযোগ’ প্রকল্পের নির্মাণ কাজের শুভ উদ্বোধন এবং মোনাজাতে অংশগ্রহণ শেষে বিকেলে তিনটার মাদারীপুর কাঁঠালবাড়ী ইলিয়াছ আহমেদ চৌধুরী ঘাটে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় অংশ নেবেন।
প্রকল্প পরিকল্পনা অনুযায়ী, ২০১৮ সালের মধ্যে সেতুর কাজ শেষ হওয়ার কথা থাকলে বিভিন্ন কারণে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকল্পের কাজ সম্পন্ন হওয়া নিয়ে সংশয় রয়েছে। এ কারণে রোববার পদ্মা পাড়ে দুই সুধী সমাবেশে পদ্মা সেতু উদ্ধোধনের সময়সীমা ঘোষণা করবেন প্রধানমন্ত্রী।
স্থানীয় নেতারা জানান, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে নিরাপত্তা বেষ্টনিসহ কঠোর নিরাপত্তা নজরদারি বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রায় তিন বছর পর শেখ হাসিনার মাওয়া সফর নিয়ে পদ্মার দুই পাড়ে উচ্ছ্বাস-উৎসবের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর মুখে কবে নাগাদ উদ্ধোধন হচ্ছে স্বপ্নের পদ্মা সেতু, সেই সময়সীমাটি জানার অপেক্ষার প্রহর গুনছে এলাকাবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *