বুধবার, মার্চ ২৮, ২০১৮, ৯:৩৬ অপরাহ্ণ

নিউজ মিডিয়া ২৪:  নারী নেতৃত্বে বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ লন্ডনে টাওয়ার হ্যামলেট কাউন্সিল থেকে বিশেষ সম্মাননা প্রদান করা হয় চাঁদপুর-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডাঃ দীপু মনিকে। টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের স্পীকার সাবিনা আখতার ও কমিউনিটির বিশেষ ব্যক্তিবর্গের উপস্থিতিতে এ সম্মাননা প্রদান করা হয়।

সাজিয়া সি্নগ্ধার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানের প্রথমেই ডাঃ দীপু মনি এমপির সংক্ষিপ্ত জীবনী পাঠ করা হয়। উপস্থিত ব্যক্তিবর্গ ডাঃ দীপু মনি এমপির রাজনৈতিক জীবন, পারিবারিক জীবন এবং কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করেন।

সম্মাননা তুলে দেয়ার সময় স্পীকার সাবিনা আখতার বলেন, ডাঃ দীপু মনি এমপি সফল নারীদের মধ্যে অন্যতম উজ্জ্বল উদাহরণ। তিনি নারীদের অগ্রযাত্রায় অনুসরণীয়, অনুকরণীয়। তিনি তাঁর কর্মে, চিন্তা চেতনায়, সাহসিকতায়, ধ্যান-ধারণায় দৃঢ় চেতনার পরিচয় দিয়েছেন। ইচ্ছাশক্তি থাকলে যেকোনো বাধা বিপত্তিকে যে অতিক্রম করা সম্ভব তা ডাঃ দীপু মনি প্রমাণ করেছেন। তিনি একাধারে চিকিৎসক, রাজনীতিবিদ, আইনজীবী, গৃহিণী এবং মা। নারীদের কাছে তো বটেই পুরুষদের কাছেও তিনি উৎসাহ ও অনুপ্রেরণার একজন মানুষ। রাজনৈতিক জাগরণেও দৃষ্টান্ত হয়ে উঠবে।

সম্মাননা গ্রহণকালে ডাঃ দীপু মনি এমপি বাংলাদেশে নারী উন্নয়ন, নারীর অর্থনৈতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক ক্ষমতায়নে এবং অগ্রগতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গৃহীত পদক্ষেপগুলো নিয়ে বিস্তারিত আলাপ করেন। তিনি বলেন, যে কোনো দেশ যে কোনো সমাজের সামগ্রিক উন্নয়ন তখনই সম্ভব, যখন সকল ক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ ও প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা যাবে। বাংলাদেশে বর্তমান সরকারের সময়ে প্রশাসনে ব্যাপকহারে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি পেয়েছে। বর্তমানে বিচারপতি, সচিব, উপাচার্য, ডেপুটি গভর্নর, রাষ্ট্রদূত, সেনাবাহিনী, নৌবাহিন, বিমান বাহিনী, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, মানবাধিকার কমিশনসহ ইত্যাদি ক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ আশানুরূপ হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সকলের সহযোগিতা, দোয়া এবং ভালোবাসা থাকলে আগামীতে আরও ভাল কাজ করে যাওয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ মোজাম্মেল আলী ডাঃ দীপু মনির আন্তর্জাতিক অর্জনগুলো তুলে ধরেন। লন্ডন ইউনিভার্সিটির ইউকের শিক্ষা ক্ষেত্রে গ্র্যাজুয়েট কোর্সে নারীদের অন্তর্ভুক্তির ১৫০ বছর পূর্তিতে এ যাবৎকালের সকল শিক্ষার্থীর মাঝ থেকে ১৫০ জন গ্র্যাজুয়েটদের নিয়ে বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। তাঁদের মাঝে শেরি বেস্নয়ার, প্রিন্সেস অ্যান, হেলেনা কেনেডির পাশাপাশি বাংলাদেশের একমাত্র অংশগ্রহণকারী ডাঃ দীপু মনিকে অভিনন্দন জানানো হয়। সমপ্রতি কমনওয়েলথ ইলেকশন অবজারভেশন গাইডলাইন রিভিউ প্যানেলের জন্যে একটি হাই লেভেল প্যানেল গঠন করা হয় এবং সেখানে এশিয়ান কমনওয়েলথ দেশ থেকে বাংলাদেশের ডাঃ দীপু মনিকে নির্বাচন করায় অনুষ্ঠানের সকলে তাঁকে অভিনন্দন জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সভাপতি সুলতান মাহমুদ শরীফ, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সৈয়দ মোজাম্মেল আলী, যুক্তরাজ্য যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম আহমেদ খান, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের নিগার চৌধুরী, যুক্তরাজ্য মহিলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আঞ্জুমান আরা আঞ্জু, সহ-সভাপতি হুসনা মতিন, যুক্তরাজ্য যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক সাজিয়া সি্নগ্ধা, সহ-সাধারণ সম্পাদক শাহিন লীনা, লন্ডন আওয়ামী লীগের সৈয়দ এহসান, আন্বারুল ইসলাম, লেবার পার্টির ফারুক আহমেদ, আহবাব হুসাইন প্রমুখ