প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে গতকাল সোমবার বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের সম্মানে ইফতার মাহফিলের আয়োজন করেন। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী অতিথিদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন এবং তাঁদের কুশল সম্পর্কে খোঁজখবর নেন।

ইফতারের আগে বিশেষ মোনাজাতে দেশ ও জাতির অব্যাহত শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। মোনাজাতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও ১৫ আগস্টের অন্যান্য শহীদদের এবং স্বাধীনতাযুদ্ধের শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর দীর্ঘ জীবন ও সুস্বাস্থ্য কামনা করা হয়। জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের পেশ ইমাম মাওলানা মুফতি মহিউদ্দিন কাসেমী মোনাজাত পরিচালনা করেন।

স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা সভাপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী, অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, জনপ্রশাসনমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের নেতা মইন উদ্দীন খান বাদল ও ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মিছবাহুর রহমান চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে অন্যান্য মন্ত্রী, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা, সাংসদ, আওয়ামী লীগের শীর্ষস্থানীয় নেতা, জাতীয় পার্টি, জাতীয় পার্টি (মঞ্জু), জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল, ওয়ার্কার্স পার্টি, ন্যাপ, সাম্যবাদী দল, গণতন্ত্রী পার্টি, গণ আজাদী লীগ, যুবলীগ, যুব মহিলা লীগ, ছাত্রলীগ, কৃষক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ, মহিলা শ্রমিক লীগ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ, আওয়ামী বঙ্গবন্ধু আইনজীবী পরিষদসহ আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনের নেতারা যোগ দেন।

মরক্কোর নতুন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

বাংলাদেশে মরক্কোর নবনিযুক্ত রাষ্ট্রদূত মজিদ হালিম গতকাল দুপুরে প্রধানমন্ত্রীর জাতীয় সংসদ ভবন কার্যালয়ে তাঁর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেছেন। এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা শিল্পায়ন ও কর্মসংস্থানের জন্য সারা দেশে এক শত অর্থনৈতিক অঞ্চল গড়ে তুলছি। মরক্কো এই অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে বিনিয়োগ করতে পারে। এতে উভয় দেশ লাভবান হবে।’

মরক্কোর রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের সঙ্গে তাঁর দেশের অর্থনৈতিক সহযোগিতা সম্প্রসারণে আগ্রহের কথা ব্যক্ত করে পর্যটন, বিদ্যুৎ ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি খাতে সহযোগিতার প্রস্তাব দেন।

About The Author

Related Posts

Leave a Reply

Your email address will not be published.