৩১ আগস্টের মধ্যে দাবি না মানলে নতুন কর্মসূচি: মুক্তির পর রাশেদ

নিউজ মিডিয়া ২৪:ঢাকা : সরকারি চাকরিতে বিদ্যমান কোটা সংস্কার আন্দোলনের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া ১০ শিক্ষার্থী কেরানীগঞ্জের ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। মঙ্গলবার দুপুরে এসব শিক্ষার্থী মুক্তি পান। এদিকে মুক্তি পেয়েই সরকারকে দেয়া আল্টিমেটামের কথা স্মরণ করিয়ে দেন বাংলদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক রাশেদ খান।

জামিনে মুক্তি পাওয়া শিক্ষার্থীরা হলেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ে মাস্টার্সের শিক্ষার্থী ফারুক হাসান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকিং অ্যান্ড ইসলাম (এমবিএ) শেষ বর্ষের ছাত্র রাশেদ খান, সমাজবিজ্ঞান বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র মশিউর রহমান, আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র তারিকুল ইসলাম, দুর্যোগ বিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র সাইদুর রহমান, ইসলামি স্টাডিজের চতুর্থ বর্ষের ছাত্র আতিকুর রহমান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাসুদ সরদার, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সোহেল ইসলাম, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জসিম উদ্দিন ও গাজীপুর ভাওয়াল কলেজের শিক্ষার্থী শাখাওয়াত হোসেন।

রাশেদ খানকে তথ্য-প্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছিল। এছাড়া বাকি শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে পুলিশকে কর্তব্য পালনে বাধা দেয়া, সরকারি কাজে বাধা দেয়া, নাশকতাসহ বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়।

কারাগার থেকে মুক্তির পর বাংলদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক রাশেদ খান সাংবাদিকদের বলেন, পাঁচ দফার আলোকে কোটা সংস্কারের প্রজ্ঞাপনসহ আমাদের তিন দফা দাবি বাস্তবায়নে সরকারকে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত আল্টিমেটাম দেয়া হয়েছিল। এর মধ্যে দাবি না মানা হলে আমরা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করব।

কয়লা লুট: পেট্রোবাংলার ৩২ কর্মকর্তাকে দুদকে তলব

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা : বড়পুকুরিয়ার ১ লাখ ৪৫ হাজার মেট্রিক টন কয়লা খোলাবাজারে বিক্রি করে প্রায় ২৩০ কোটি টাকা আত্মসাৎ মামলার তদন্তে বাংলাদেশ তেল, গ্যাস ও খনিজ সম্পদ করপোরেশনের (পেট্রোবাংলা) ৩২ কর্মকর্তাকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। সোমবার দুদকের উপপরিচালক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সামছুল আলমের সই করা পৃথক দুই চিঠি পেট্রোবাংলা চেয়ারম্যান বরাবর পাঠানো হয়েছে।
চিঠিতে এসব কর্মকর্তা বরাবর নোটিশ জারি করে নির্দিষ্ট তারিখে দুদকে উপস্থিত থাকার অনুরোধ জানানো হয়েছে।
দুদকে যাদেরকে তলব করা হয়েছে তারা হলেন, উপমহাব্যবস্থাপক (মেনটেনেন্স অ্যান্ড কন্টাক্ট ম্যানেজমেন্ট) মো. নাজমুল হক, ব্যবস্থাপক (কোল হ্যান্ডলিং ম্যানেজমেন্ট) মো. শোয়েবুর রহমান, ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) মো. সাইদ মাসুদ, উপব্যবস্থাপক (মেনেটেনেন্স অ্যান্ড অপারেশন) মো. মাহাবুব হোসেন, সহকারী ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) মো. মনিরুজ্জামান; সহকারী ব্যবস্থাপক (কোল হ্যান্ডলিং ম্যানেজমেন্ট) মো. মাহাবুব রশিদ ও ব্যবস্থাপক (স্টোর) মো. দিদারুল কবির। তাদেরকে ১৬ আগস্ট দুদকে হাজির হয়ে নিজ নিজ বক্তব্য জানাতে বলা হয়েছে।
অন্যদিকে মহাব্যবস্থাপক (মাইন অপারেশন) আবু তাহের মো. নুরুজ্জামান চৌধুরী, উপ-মহাব্যবস্থাপক এ কে এম খালেদুল ইসলাম, উপ-ব্যবস্থাপক (মেইনটেনেন্স অ্যান্ড অপারেশন) মোরশেদুজ্জামান; উপ-ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) হাবিবুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপক (মাইন ডেভেলপমেন্ট) জাহেদুর রহমান, উপ-ব্যবস্থাপক (ভেন্টিলেশন ম্যানেজমেন্ট) সত্যেন্দ্র নাথ বর্মণ, ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) সৈয়দ ইমাম হাসান ও উপ-মহাব্যবস্থাপক (মাইন প্যানিং অপারেশন) জোবায়ের আলীকে হাজির হতে বলা হয়েছে ২৮ আগস্ট।
ব্যবস্থাপনা পরিচালক হাবিব উদ্দিন আহমদ; প্রাক্তন মহাব্যবস্থাপক (এক্সপোরেশন), কোম্পানি সেক্রেটারি আবুল কাশেম প্রধানিয়া ও মোশারফ হোসেন সরকার, মহাব্যবস্থাপক (জেনারেল সার্ভিস) মাসুদুর রহমান হাওলাদার, ব্যবস্থাপক (প্রোডাকশন ম্যানেজমেন্ট) অশোক কুমার হালদার, ব্যবস্থাপক (মেইনটেনেন্স অ্যান্ড অপারেশন) আরিফুর রহমান, ব্যবস্থাপক (ডিজাইন, কন্সট্রাকশন অ্যান্ড মেইনটেনেন্স) জাহিদুল ইসলাম এবং উপ-ব্যবস্থাপক (সেফটি ম্যানেজমেন্ট) একরামুল হককে ২৯ আগস্ট হাজির থাকতে বলা হয়েছে।
এছাড়া ৩০ আগস্ট দুদকে হাজির থাকতে বলা হয়েছে উপ-ব্যবস্থাপক (কোল হ্যান্ডলিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট) মো. খলিলুর রহমান, প্রাক্তন মহাব্যবস্থাপক (ফাইন্যান্স) আব্দুল মান্নান পাটোয়ারি ও গোপাল চন্দ্র সাহা, ব্যবস্থাপক (হিসাব) সারোয়ার হোসেন, ব্যবস্থাপক (সেলস ও রেভিনিউ কালেকশন) মো. কামরুল হাসান, উপব্যবস্থাপক (মার্কেটিং ও কাস্টমার সার্ভিসেস) মোহাম্মদ নোমান প্রধানীয়া, প্রাক্তন মহাব্যবস্থাপক (প্রশাসন) এ কে এম সিরাজুল ইসলাম ও শরিফুল আলম এবং সহকারী ব্যবস্থাপক (নিরাপত্তা) আল আমিনকে।
এ বিষয়ে দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ গণমাধ্যকে বলেন, বড়পুকুরিয়া কয়লা খনির দুর্নীতির তদন্ত দ্রুত শেষ হবে। প্রকৃত দোষীদেরই আইনের আওতায় আনা হবে। তদন্ত শেষ হওয়ার আগে কোনো বিষয়ে বক্তব্য দেওয়ার সুযোগ নেই।
এর আগে গত ১ আগস্ট বড়পুকুরিয়া কোল মাইনিং কোম্পানি লিমিটেডের (বিসিএমসিএল) প্রাক্তন ব্যবস্থাপনা পরিচালক এস এম নুরুল আওরঙ্গজেব ও মহাব্যবস্থাপক (সারফেস অপারেশন) সাইফুল ইসলাম সরকারকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে দুদক।

নিজ নির্বাচনী এলাকার জনগণ ও নেতা-কর্মীদের সাথে মতবিনিময়ের জন্যে আজ চাঁদপুর যাচ্ছেন ডাঃ দীপু মনি এমপি

নিউজ মিডিয়া ২৪:ঢাকা : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়ক সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও চাঁদপুর-৩ (সদর-হাইমচর) আসনের সংসদ সদস্য ডাঃ দীপু মনি এক সংক্ষিপ্ত সফরে আজ ৪ আগস্ট শনিবার চাঁদপুর আসছেন। এ সফর মূলত তাঁর নির্বাচনী এলাকার জনগণ ও নেতা-কর্মীদের সাথে মতবিনিময়ের জন্যে।

তিনি আজ দুপুর দেড়টায় নদীপথে ঢাকা থেকে চাঁদপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা করবেন। চাঁদপুর পেঁৗছে রাত ৮টায় মিশন রোডস্থ বাসভবনে তিনি তাঁর নির্বাচনী এলাকার সাধারণ জনগণ ও দলীয় নেতা-কর্মীদের সাথে মতবিনিময় করবেন। পরদিন ৫ আগস্ট রোববার বিকেল ৩টা ৪০ মিনিটে তিনি ঢাকার উদ্দেশ্যে নদীপথে চাঁদপুর ত্যাগ করবেন।

হলি আর্টসান মামলা: বিচারের জন্য মহানগর আদালতে বদলি

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা: রাজধানী গুলশানের হলি আর্টসানে জঙ্গি হামলার ঘটনার দায়ের করা মামলাটি বিচারের জন্য ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বদলির আদেশ দিয়েছেন আদালত।
বৃহস্পতিবার ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) সাইফুজ্জামার হিরো এই আদেশ দেন।
গুলশান থানার আদালতের নিবন্ধন কর্মকর্তা রাকিবুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, মামলাটি বিচারের জন্য ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বদলির আদেশ দিয়েছেন সিএমএম আদালত। মামলাটি এখন সিএমএম আদালত থেকে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে পাঠানো হবে। সেখানে মামলাটির বিচার কার্যক্রম হবে।
এর আগে ২৩ জুলাই ৮ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক হুমায়ুন কবীর। এর মধ্যে ৬ জন কারাগারে ও দুই জন পলাতক রয়েছে।
কারাগারে থাকা ছয় আসামি হলেন- জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, রাকিবুল হাসান রিগান, রাশেদুল ইসলাম ওরফে র্যাশ, সোহেল মাহফুজ, মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান এবং হাদিসুর রহমান সাগর।
পলাতক দুই আসামি হলেন- শহীদুল ইসলাম খালেদ ও মামুনুর রশিদ রিপন। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্রে গ্রেফতারি পরোয়ানা চাওয়া হয়েছে।
এ ছাড়াও বিভিন্ন অভিযানে ১৩ জন নিহত হওয়ায় তাদের অব্যাহতি দানারে সুপারিশ করেছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা। যার মধ্যে ৮ জন বিভিন্ন অভিযানে ও ৫ জন হলি আর্টিসানেই নিহত হয়েছেন।
গুলশানে হলি আর্টিসানে সেনাবাহিনীর ‘অপারেশন থান্ডারবোল্টে’ নিহত পাঁচজন হলেন- রোহান ইবনে ইমতিয়াজ, মীর সামেহ মোবাশ্বের, নিবরাস ইসলাম, শফিকুল ইসলাম ওরফে উজ্জ্বল ও খায়রুল ইসলাম ওরফে পায়েল।
বিভিন্ন ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানে নিহত আটজন হলেন- তামীম আহমেদ চৌধুরী, নুরুল ইসলাম মারজান, তানভীর কাদেরী, মেজর (অব.) জাহিদুল ইসলাম ওরফে মুরাদ, রায়হান কবির তারেক, সারোয়ান জাহান মানিক, বাশারুজ্জামান ওরফে চকলেট ও মিজানুর রহমান ওরফে ছোট মিজান।

মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার তীব্র নিন্দা সিপিজের

নিউজ মিডিয়া ২৪:ডেস্ক: আদালতের বাইরে আমার দেশ সম্পাদক মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলায় কড়া নিন্দা জানিয়েছে সাংবাদিকদের অধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক সংগঠন কমিটি টু প্রটেক্ট জার্নালিস্টস (সিপিজে)। একই সঙ্গে কর্তৃপক্ষের কাছে তারা এ হামলার তদন্ত দাবি করেছে এবং জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছে।
এক বিবৃতিতে সিপিজে বলছে, কুষ্টিয়ায় একটি মানহানির মামলার শুনানি শেষে আদালত থেকে বেরিয়ে আসছিলেন দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার সম্পাদক মাহমুদুর রহমান। এ সময় ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা তার ওপর আক্রমণ চালিয়ে তাকে আহত হরে। হাসপাতাল থেকে সিপিজেকে এসব কথা জানিয়েছেন মাহমুদুর রহমান।
তবে, ওই হামলায় জড়িত থাকার দায় অস্বীকার করেছে ছাত্রলীগ। বিরোধী দলপন্থি দৈনিক আমার দেশ জোর করে বন্ধ করে দেয়া হয় ২০১৩ সালে। সাংবাদিকতার সঙ্গে সম্পর্ক আছে এমন কাজের জন্য অতীতে তাকে জেলে থাকতে হয়েছে। সিপিজের উপ নির্বাহী পরিচালক রবার্ট ম্যাহোনি বলেছেন, শেখ হাসিনার সমালোচক সাংবাদিকরা তাদের কাজ নিয়ে কিভাবে, কি পরিবেশে লড়াই করছেন তারই চিত্র ফুটে উঠেছে মাহমুদুর রহমানের ওপর হামলার মধ্য দিয়ে। যারা তার ওপর হামলা চালিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই নিন্দা জানাতে হবে। জড়িতদের বিরুদ্ধে অতি দ্রুত ব্যবস্থা নিতে হবে এবং তাদেরকে বিচারের আওতায় আনতে হবে।
বিবৃতিতে বলা হয়, কুষ্টিয়ায় মানহানির মামলায় সবেমাত্র জামিন পেয়েছেন মাহমুদুর রহমান। তখন আদালতের ঠিক বাইরে ছাত্রলীগের প্রায় ১০০ নেতাকর্মী সমবেত হয়েছিলেন। তারা তাকে বেশ কয়েক ঘণ্টা আদালতকক্ষের ভিতর অবরুদ্ধ করে ফেলে। এরপর তিনি আদালত কক্ষ ত্যাগের চেষ্টা করলে তার ওপর ইটপাটকেল ও লাঠি দিয়ে হামলা চালায় তারা। মাহমুদুর রহমান বলেছেন, তিনি পুলিশের কাছে সহায়তা চেয়েছিলেন। কিন্তু তারা সাড়া দিয়েছে অত্যন্ত ধীর গগিতে। হামলার পর তাকে কোনো প্রাথমিক চিকিৎসা দেয় নি তারা। এ সময় তার শরীর থেকে রক্ত ঝরছিল। মাহমুদুর রহমান বলেছেন, তার মাথায় বেশ কতগুলো ক্ষত হয়েছে। মাথার পিছন দিকে ও চিবুকে ক্ষত হয়েছে। সেগুলোতে সেলাই দেয়া হয়েছে। তাকে একরাত ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিতে থাকতে হয়েছে।
এ নিয়ে কুষ্টিয়া পুলিশের সঙ্গে ইমেইলের মাধ্যমে যোগাযোগের চেষ্টা করে সিপিজে। কিন্তু তারা তাৎক্ষণিকভাবে কোনো সাড়া দেয় নি।
বিবৃতিতে বলা হয়, বর্তমানে অনেক মামলায় লড়ছেন মাহমুদুর রহমান। তার বিরুদ্ধে রয়েছে সরকারি কর্মকর্তাদের সমালোচনা করায় রাষ্ট্রদ্রোহের মামলা। বাংলাদেশে সাংবাদিকরা বহুমাত্রিক হুমকি মোকাবিলা করছেন। এর মধ্যে রয়েছে ফৌজদারি মানহানি, জোরপূর্বক গুম, সরকার ও বিভিন্ন কর্তৃপক্ষ থেকে ভীতি প্রদর্শন। এ জন্য উচ্চ মাত্রায় এখানে সেলফ সেন্সরশিপ আরোপ করা হয়। এ বিষয়টি প্রামাণ্য হিসেবে ধারণ করেছে সিপিজে। এ ছাড়া তারা আরো প্রামাণ্য হিসেবে ধারণ করেছে কিভাবে সরকার বিরোধী দলীয় প্রেসকে টার্গেট করেছে।

এসআই পদে লিখিত পরীক্ষার ফল প্রকাশ

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা : বহিরাগত ক্যাডেট এসআই (নিরস্ত্র) পদে নিয়োগ পরীক্ষা-২০১৮ এ লিখিত পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছে ৫ হাজার ৪১১ জন।
গত ১৯, ২০ ও ২১ মার্চ অনুষ্ঠিত লিখিত পরীক্ষার ফলাফল বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ পুলিশের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়।
পুলিশ সদর দফতরের এআইজি (রিক্রুটমেন্ট অ্যান্ড ক্যারিয়ার প্লানিক-২) মোহাম্মদ নাসিরুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক বার্তায় জানানো হয়, ২০১৮ সালের বহিরাগত ক্যাডেট এসআই (নিরস্ত্র) পদে লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীদের মৌখিক পরীক্ষার তারিখ, সময়সূচি ও স্থান যথাসময়ে বাংলাদেশ পুলিশের ওয়েবসাইট www.police.gov.bd মাধ্যমে সবাইকে অবহিত করা হবে।
উল্লেখ্য, উক্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য উত্তীর্ণ প্রার্থীদের অবশ্যই লিখিত পরীক্ষার প্রবেশপত্র, শিক্ষাগত যোগ্যতার সব সনদপত্র, নাগরিকত্বের প্রামাণিক ও মুক্তিযোদ্ধা সনদসহ (প্রযোজ্যক্ষেত্রে) সংশ্লিষ্ট প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি সঙ্গে আনতে হবে।
ফলাফল দেখতে নিচে ক্লিক করুন

সাগর-রুনি হত্যার প্রতিবেদন দাখিল ফের পেছালো

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা: মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক গোলাম মোস্তফা সারোয়ার ওরফে সাগর সারোয়ার ও এটিএন বাংলার সিনিয়র রিপোর্টার মেহেরুন নাহার রুনা ওরফে মেহেরুন রুনি হত্যা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল ফের পেছালো আদালত।
মঙ্গলবার (১৭ জুলাই) মামলাটির তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) কোনো প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল হক ফের তদন্ত প্রতিবেদনের তারিখ পিছিয়ে দিয়েছেন।
আগামী ৫ সেপ্টেম্বর নতুন করে দিন ধার্য করা হয়েছে। এ নিয়ে গত ৬ বছরে ৫৯ বার সময় বেঁধে দেওয়া হলেও প্রতিবেদন দিতে পারেনি র‌্যাব।
২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারে নিজেদের ভাড়া বাসায় খুন হন সাগর-রুনি সাংবাদিক দম্পত্তি।
ঘটনার ৮ মাস পর ২০১২ সালের ১০ অক্টোবর বনানী থানার একটি হত্যা ও ডাকাতি মামলায় গ্রেফতার থাকা ৫ আসামি মিন্টু ওরফে বারগিরা মিন্টু, বকুল মিয়া, কামরুল হাসান অরুন, রফিকুল ইসলাম ও আবু সাঈদকে গ্রেফতার দেখিয়ে এ মামলায় রিমান্ড চাওয়া হয়।
ওইদিনই আরও দুই আসামি রুনির কথিত বন্ধু তানভীর রহমান ও বাড়ির দারোয়ান পলাশ রুদ্র পালকে গ্রেফতার এবং পরবর্তীতে অপর দারোয়ান আসামি এনাম আহমেদ ওরফে হুমায়ুন কবিরকে গ্রেফতার করা ছাড়া গত ৬ বছরে মামলার তদন্তে দৃশ্যত কোনো অগ্রগতি নাই। তদন্তের দীর্ঘসূত্রিতায় কয়েক আসামি ইতোমধ্যেই জামিনে পেয়েছেন।
সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের পর হাইকোর্টের নির্দেশে ২০১২ সালের ১৮ এপ্রিল মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পায় র‌্যাব।
এরপর সাগর-রুনির লাশ কবরস্থান থেকে তোলার আবেদন করে র‌্যাব। ২০১২ সালের ২৬ এপ্রিল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শাহিদুজ্জামানের উপস্থিতিতে সাগর-রুনির লাশ তোলা হয়।
এরপর ২০১২ সালের ৭ জুন থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত জব্দকৃত আলামতের সঙ্গে ম্যাচিং করার জন্য ৮ আসামি ও সন্দেহভাজন ২১ আত্মীয়ের নমুনা যুক্তরাষ্ট্রে পাঠানো হয়। মূলত এরপরই মামলার তদন্তে স্থবিরতা নেমে

আবরো খুন বাড্ডায়’

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা: রাজধানীর বাড্ডা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ আলীকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।
শুক্রবার দুপুরে জুমার নামাজ শেষে উত্তর বাড্ডার আলীর মোড়ে বায়তুস সালাম জামে মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।
আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত্যু ঘোষণা করেন।
বাড্ডা থানার পরিদর্শক(তদন্ত) নজরুল ইসলাম গণমাধ্যমকে বলেন, ‘ফরহান আলী জুমার নামাজ শেষে মসজিদ থেকে বের হচ্ছিলেন। তখনই গুলির ঘটনা ঘটে। পরে তাকে দ্রুত উদ্ধার করে ইউনাইটেড হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’
কতজন এসে গুলি করেছে বা কীভাবে তারা এসেছিল তা জানাতে পারেননি নজরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থলে রয়েছি। প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে বিস্তারিত জানার চেষ্টা করছি।এখন পর্যন্ত খুনরে ঘটনা কোন বিস্তারিত জানা যাযনি।

রাজধানী বাড্ডায় খুনিদের আতংকে দিন কাটছে জাহাঙ্গীরের পরিবার ?

‘হিট অব দ্য মোমেন্টে’
রাজধানী বাড্ডা থানার এমপি রহমত উল্ল্যার এমন উচ্চারণের ভুমিকায় ভেস্তে গেলো জাহাঙ্গীরের পরিবার ?
অনুসন্ধান রিপোর্ট :- এমপি রহমত উল্ল্যার এমন উচ্চারণের ভুমিকায় ভেস্তে গেলো বাড্ডা থানার বেরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমের স্নেহের দুই ভাই কামরুজ্জামান দুখু মিয়া (৩৫) নিহত,আর গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন দ্বিতীয় ভাই মো: কামাল হোসেন । এমন বর্বর নিযাতন শিকার হয়ে বর্তমানে দিন কাটাছ্চেন বেরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানও বাড্ডা থানার আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম ।
জানা গেছে ,আসন্ন সিটি নির্বাচন নিয়ে উচ্চ আদালতে রিট করেন জাহাঙ্গীর আলম ও ভাটারা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান ।রিট আবেদনের কারণে আটকে গেছে ডিএনসিসির নির্বাচন।নির্বাচন বন্ধ/রিট করার কারনেই মুলত জাহাঙ্গীরের সঙ্গে স্থানীয় এমপি রহমত উল্লাহ ও তার ভাগ্নে ফারুকের দ্বন্দ্বের সুত্রপাত ঘটে ।ওই থেকে জাহাঙ্গীরের পরিবারের উপর নির্যাতন চালিয়ে যাওয়া ও ইউনিয়ন পরিষদে তালা বন্ধকরা এবং আমার ব্যবসায়ী কাজে বাধা দেওযাসহ নানা ভাবে হুমকি দেয স্থানীয় এমপি রহমত উল্লাহ ও তার ভাগ্নে ফারুক গংরা ।

বেরাইদের প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে- বালু নদের পাড়ে ক্রাউন রেডিমিক্স ফ্যাক্টরিতে পাথর ও বালু সরবরাহ করে আসছিলেন জাহাঙ্গীরের ভাই কামরুজ্জামান।ঘটনার দিন দুপুর দেড়টার দিকে কামরুজ্জামান তার ভাগ্নে সানি ও ভাতিজা আবদুল হাকিমকে নিয়ে বকেয়া বিল জমা দিতে ক্রাউনের ফ্যাক্টরিতে যান। তবে চলতি মাসে ওই প্রতিষ্ঠানের কাঁচামাল সরবরাহের কাজ কামরুজ্জামানের কাছ থেকে বাগিয়ে নেন এমপি রহমত উল্লাহর ভাগ্নে ফারুক ও তার লোকজন। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে এলাকায় উত্তেজনা চলছিল। কামরুজ্জামান বিল জমা দিতে ওই ফ্যাক্টরিতে গেলে ফারুক তার সাঙ্গোপাঙ্গ নিয়ে কামরুজ্জামানের লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এতে সানি আহত হন। এরপর মার খেয়ে তারা বেরাইদে নিজ বাসায় চলে আসেন। কামরুজ্জামান বিষয়টি তার লোকজন ও পুলিশকে অবহিত করেন। বেলা সাড়ে ৩টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায়। ওই সময় কামরুজ্জামান ও তার দুই ভাই কামাল হোসেন, তাজ মোহাম্মদ, ফুফাতো ভাই শরীফ হোসেন ও চাচা নাজির হোসেনসহ ১০-১২ জন বেরাইদের ৩০ ফুট সড়ক সংলগ্ন ফোর্ড ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বিল্ডার্স নামে একটি প্রতিষ্ঠানের সামনে যান। ওই এলাকায় আগে থেকে ফারুক ২০-২৫ জন সমর্থক নিয়ে অবস্থান করছিলেন। একপর্যায়ে তারা মুখোমুখি হন। এ সময় পুলিশের উপস্থিতিতেই ফারুক গংরা কামরুজ্জামানের দিক লখ্য করে এলোপাতাড়ি গুলি শুরু করে। প্রায় ২০-২৫ মিনিট ধরে সংঘর্ষ চলতে থাকে। ঘটনাস্থলে পুলিশের দুটি টিম থাকলেও সংঘর্ষ থামাতে তেমন কোনো ভূমিকা রাখতে পারেনি তারা। এক পর্যায়ে কামরুজ্জামানের মাথার পেছনে গুলি লাগলে তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। তাকে অ্যাপোলো হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। এতে আহতহন আরো সাতজন আহতদের মধ্যে সাতজনকে রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

স্থানীয়দের অভিযোগ- বেরাইদ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর গত আট বছরে অনিয়ম-দুর্নীতি করার সুযোগ না দেয়ায় এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে ক্ষোব তরৈ হয় । তাই তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরে স্থানীয় এমপি রহমত উল্লাহর ভাগ্নে ফারুক ও তার লোকজন ।তবে এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ফারুক গংরা।জাহাঙ্গীর আলমের দাবি, ষড়যন্ত্র করে বিভিন্ন ভাবে ফাঁসানো হচ্ছে তাকে। তার বিরুদ্ধে একটি পক্ষ পরিকল্পিতভাবে কুৎসা রটাচ্ছে। এমন কি সরকারী বিভিন্ন দপ্তরে নামে/বেনামে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানি শিকার হতে হয় তাকে ।

প্রকাশিত টিবি নিউজ : https://www.youtube.com/watch?v=sg1Jm52QE6s

তিনি আরও বলেন, এমপি রহমত উল্লাহ তার ভাগ্নে ফারুককে মহানগর আওয়ামী লীগের পদ দিতে চান। ছেলে হেদায়েত উল্লাহকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় কাউন্সিলর করতে চান। তবে তিনি মামলা করায় হেদায়েত উল্লাহ কাউন্সিলর হতে পারেননি। রহমত উল্লাহ এতে ক্ষুব্ধ। গুলি করার সময় ফারুক, সাজ্জাদ, মহসিন, আইয়ুব ও মশিউরসহ অন্তত ২৫-৩০ জন উপস্থিত ছিল বলে দাবি করেন জাহাঙ্গীর।

আরো জানা গেছে, সম্প্রতি বেরাইদকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের আওতাভুক্ত করার পর এই ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকা নিয়ে ৪২ নম্বর ওয়ার্ড গঠিত হয়। ডিএনসিসির মেয়র পদে উপনির্বাচনের সময় এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। সে সময় বেরাইদ মুসলিম হাইস্কুল মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বসে কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে রহমত উল্লাহর ছেলে হেদায়েত উল্লাহর নাম প্রকাশ করেন। ওই সময় জাহাঙ্গীর আলমও উপস্থিত ছিলেন। নির্বাচনের মনোনয়ন ফরম ছাড়ার পর হেদায়েত উল্লাহর পাশাপাশি জাহাঙ্গীর কাউন্সিলর হিসেবে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। তার পর থেকে জাহাঙ্গীরের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে স্থানীয় এমপি রহমত উল্লাহর লোকজন ।
স্থানীয় সূত্রে আরও জানা গেছে, জাহাঙ্গীর আলম এক সময় আওয়ামী লীগের এমপি রহমত উল্লাহর ‘কাছের লোক’ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তবে নির্বাচনের প্রার্থীতা/মনোনয়ন ফরম নেয়ার কারনে তাদের দু-জনের মধ্যে দূরত্ব তৈরি হয়।এতে করে দুই পক্ষের শেষ পর্যন্ত তা প্রাণঘাতী সংঘর্ষে রূপ নিল।
তবে জাহাঙ্গীরের পরিবারের উপর এমন নির্যাতন করে থেমে নেই তারা । জীবনের উপর যুকি নিয়ে আতংকে জীবন যাপন করেন বর্তমান বেরাইদের ইউপি, চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম । অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় এমন ভাবে তাজা জীবন দিতে হলো দুই ভাইকে ।বর্তমানে আইনি লড়াই আর মানবতায জীবন নিয়ে স্থানীয় এমপি রহমত উল্লাহ ও তার ভাগ্নে ফারুকের হুমকি সহ ভাইকে প্রকাশ্যে গুলিকরে খুন করায় তাদের থেকে রক্ষা পেতে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপর দূষ্টি আকর্শন করে এর সু-বিচার দাবী করছি ।

দেশের বিভিন্ন জেলায় ভয়াবহ বন্যা, ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক: ঈদের আগে আকস্মিক টানা বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে সিলেট, খাগড়াছড়ি ও ফেনী, রাঙামাটি, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জের বিভিন্ন অঞ্চলে ভয়াবহ বন্যায় প্লাবিত হয়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গবাদি পশুর মৃত্যুসহ বাড়িঘর ও অনেক ফসলজমি নষ্ট হয়ে গেছে বলে জানা যায়।

প্রতিনিধি সূত্রে জানা যায়, দু’দিনের টানা বৃষ্টি এবং ভারত থেকে নেমে আসা উজানের পানিতে মৌলভীবাজারের মনু এবং ধলাই নদীর পানি দ্রুত বেড়ে যায়। নদীর প্রতিরক্ষা বাধ ভেঙে আউশ ফসল ও সবজি ক্ষেতসহ ৫ ইউনিয়নের অন্তত ৩০টি গ্রাম প্লাবিত হয়। এতে পানিবন্দি হয়ে পড়েছে হাজারো হাজার মানুষ। পানি উন্নয়ন বোর্ডের তথ্যমতে, মনু নদীর পানি বিপদসীমার ১৭৫ সেন্টিমিটার এবং ধলাই নদীর পানি ৫২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে বিপজ্জনক অবস্থায় রয়েছে প্রতিরক্ষা বাঁধের অন্তত ২০টি এলাকা।

এদিকে পানি বেড়ে ফেনীর ফুলগাজী ও পরশুরামের ১১ গ্রাম প্লাবিত হয়েছে।
মুহুরী নদীর বাঁধে ভাঙন দেখা দিয়েছে। এ ছাড়া ছাগলনাইয়া, সোনাগাজী ও ফেনী সদর উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।
বুধবার সকাল থেকে মুহুরী নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার ৮০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এর আগেরদিন মঙ্গলবার দিনভর ভারী বর্ষণে ফুলগাজী সদর ইউনিয়নের উত্তর দৌলতপুর ও বরইয়া অংশের দুটি বাঁধ ভেঙে অন্তত ১১ গ্রাম প্লাবিত হয়।

তবে প্রবল বর্ষণে খাগড়াছড়ি জেলা শহরের বন্যা পরিস্থিতি অপরিবর্তিত রয়েছে। এদিকে, রামগড় ও দীঘিনালা উপজেলায় বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। বন্যায় ঘরবাড়িতে পানি ঢুকে পড়ায় বিভিন্ন আশ্রয়কেন্দ্রে সহস্রাধিক পরিবার আশ্রয় নিয়েছে। খরস্রোতা ফেনী ও মাইনী নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে খাগড়াছড়ি শহরের দুই-তৃতীয়াংশ, রামগড় ও মহালছড়ির বিস্তৃত অঞ্চল এবং দীঘিনালার মেরুং বাজার পানিতে তলিয়ে গেছে। বিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানে পানি ঢুকে গুরুত্বপূর্ণ নথি নষ্ট হয়ে গেছে। ভেসে গেছে কয়েকশ পুকুরের মাছ। রেড ক্রিসেন্ট ও যুব রেড ক্রিসেন্টের সদস্যরা বিভিন্ন স্থানে আটকেপড়া লোকজনকে উদ্ধার করে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়েছে।
এদিকে হবিগঞ্জে খোয়াই নদীর পানি বিপৎসীমার ১০০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হওয়ায় হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে হবিগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধ। মঙ্গলবার বিকেল থেকে নদীতে পানি বাড়তে থাকে। রাত ১১টা থেকে খোয়াই নদীর পানি বিপৎসীমার ১০০ সেন্টিমিটারেউপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল।
হবিগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী তাওহিদুল ইসলাম জানান, ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে প্রচুর বৃষ্টিপাত হয়েছে। সেখানকার পানি নেমে খোয়াই নদীতে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। পানি আরো বাড়বে বলেও জানান তিনি।
এছাড়াও তিন দিনের অবিরাম বৃষ্টিপাত ও সীমান্ত থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে কাচালং নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় রাঙামাটির বাঘাইছড়ির উপজেলার ১৪টি গ্রাম সম্পূর্ণ প্লাবিত হয়েছে।
গ্রামগুলো হলো- করেঙ্গাতলী, বাঘাইহাট, বঙ্গলতলী, রূপকারী, কদমতলী, তুলাবান, গুচ্ছগ্রাম, মুসলিম ব্লক, ইমাম পাড়া, মাস্টার পাড়া, গুনিয়া পাড়া, সরকার পাড়া, কলেজ পাড়া ও পুরাতন মারিষ্যা।
পানিবন্ধি হয়ে পড়েছে প্রায় ৬০ হাজার মানুষ। পাহাড়ি ঢল নেমে আসায় বাঘাইছড়ির বিস্তৃণ এলাকার কৃষি জমি পানিতে তলিয়ে গেছে। পানিবন্ধি মানুষ নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে বিভিন্ন স্কুল, কলেজ ও মার্কেটসহ বিভিন্ন পাকা ভবনে অবস্থান নিয়েছে। স্থানীয় প্রশাসন দূর্গতদের জন্য এখনো কোন ত্রাণ তৎপরতা শুরু করতে পারেনি। তবে স্থানীয় আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে দূর্গতদের মাঝে শুকনা খাবার বিতরণ করা হচ্ছে। পাহাড়ি ঢল ও অতি বর্ষণের কারণে কাপ্তাই হ্রদের পানি উচ্চতা বাড়তে থাকায় লংগদু, জুরাছড়ি, বরকল, বিলাইছড়ি, নানিয়ারচরের নিম্নাঞ্চলের বসতবাড়ি ও কৃষি জমি পানিতে ডুবে গেছে।
এদিকে, নানিয়ারচর উপজেলায় পাহাড় ধ্বসের মাটি চাপায় নিহত ১১ জনের সৎকার মঙ্গলবার সম্পন্ন হয়েছে। রাঙ্গামাটিতে তিন পর বৃষ্টি বন্ধ হওয়ায় জনজীবন স্বাভাবিক হতে শুরু করেছে। আর কোথাও পাহাড় ধ্বসের ঘটনা ঘটেনি। পাহাড় ধ্বসের আশংকায় আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে আশ্রয় নেয়া লোকজন বাড়ি ঘরে পুনরায় ফিরতে শুরু করেছে। রাঙ্গামাটি-চট্টগ্রাম সড়কসহ রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি সড়কে যোগাযোগ পুনরায় চালু হয়েছে।
এব্যাপারে রাঙামাটি জেলা প্রশাসক এ কে এম মামুনুর রশিদ জানান, বাঘাইছড়িতে পাহাড়ী ঢলে বেশ কয়েকটি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এতে করে সেখানে বসবাসরত মানুষ পানিবন্ধি হয়ে পড়েছে। বাঘাইছড়ি উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বেশ কয়েকটি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সেখানে মানুষ আশ্রয় গ্রহন করেছে। তবে এই পানি হচ্ছে পাহাড়ী ঢল তাই বৃষ্টি বন্ধ হয়ে গেলে আস্তে আস্তে পানি কমে যাবে এবং গতকাল রাত থেকে বৃষ্টিপাত হচ্ছে না। তাই যে সমস্ত এলাকা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে তা আস্তে আস্তে কমে যাচ্ছে এবং জনজীবন স্বাভাবিক হয়ে আসছে। তার পরেও আমরা প্রস্তুত রয়েছি এবং মঙ্গলবার বাঘাইছড়ি উপজেলা নিবার্হী অফিসারকে ১০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দিয়েছি যাতে আশ্রয় কেন্দ্রে মানুষ এসে খাওয়ার কোন সমস্যা না হয়।