সালমান নয়, মান্নার মৃত্যুতে চলচ্চিত্রের ক্ষতি হয়েছে: মিশা

নিউজ মিডিয়া ২৪:ঢাকা: আমাকে কেউ যদি প্রশ্ন করেন, সালমান শাহ নাকি মান্না, কার মৃত্যুর পর চলচ্চিত্রের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে? আমি বলব, মান্না মারা যাওয়ার পর চলচ্চিত্রের বড় ক্ষতি হয়েছে। সালমান শাহ শুধু তারকাখচিত নায়ক ছিলেন, কিন্তু নায়ক মান্না ছিলেন গবেষক।’ বললেন চলচ্চিত্রের জনপ্রিয় খলনায়ক ও বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর। রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে আজ শনিবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির উদ্যোগে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ কার্যক্রমের চুক্তি স্বাক্ষর ও লোগো উন্মোচন অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে তিনি আরও বলেন, ‘দেশের চলচ্চিত্র এখন মহাসংকটের মধ্য দিয়ে পার হচ্ছে। শুধু তা-ই নয়, দেশের চলচ্চিত্রে এখন যে সংকট চলছে, তার জন্য মান্নার মৃত্যু দায়ী।’
প্রয়াত নায়ক মান্নাকে ‘চলচ্চিত্রের গবেষক’ উল্লেখ করে মিশা বলেন, ‘সালমান শাহ শুধু তারকাখচিত নায়ক ছিলেন। কিন্তু একটা ছবি কীভাবে চলবে, দেশের মানুষ কীভাবে আনন্দ পাবে, ইন্ডাস্ট্রি কীভাবে চলবে তা নিয়ে ভাবতেন মান্না। আজ চলচ্চিত্রের যে সংকটময় অবস্থা, তার পঞ্চাশ ভাগের জন্য মান্নার মৃত্যু দায়ী। মান্না ঈদের সময় বুদ্ধি করে এমন একটা ছবি বানাতেন, সেই ছবির সাফল্য দেখে আরও ১০ কিংবা ১৫টা ছবি বানাতে প্রযোজকেরা এগিয়ে আসতেন।’
শুধু মান্না নয়, মিশা সওদাগর তাঁর বক্তব্যে চিত্রনায়ক জসীমকেও ‘চলচ্চিত্রের গবেষক’ হিসেবে অভিহিত করেন। জসীম ও মান্নার মতো ‘চলচ্চিত্রের গবেষক’ নেই বলে আজ চলচ্চিত্রের এই অবস্থা মনে করছেন তিনি।
২৮ বছর পর আবার শুরু হচ্ছে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতা। এমনটাই জানিয়েছেন বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজার।
শনিবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা ক্লাবে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ কার্যক্রম নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন চলচ্চিত্র পরিবারের আহ্বায়ক আকবর পাঠান ফারুক, নায়ক এম এ আলমগীর, পরিচালক বদিউল আলম, সোহানুর রহমান সোহান, ছটকু আহমেদ, শাহ আলম কিরণ, এশিয়ান টেলিভিশনের চেয়ারম্যান হারুনুর রশীদ, নায়ক জায়েদ খান ও সাইমন প্রমুখ।
মিশা সওদাগর বলেন, ‘আমি চলচ্চিত্রের শিল্পীদের প্রতিনিধিত্ব করছি। আমি বলতে পারি, এ দেশে এখন কোনো শিল্পী নেই। এ মুহূর্তে বক্স অফিস মাতাবে, মানুষ দেখে খুশি হবে, মানুষের ভেতরটা তালি দেবে, দর্শক টাকা খরচ করে যাদের ছবি দেখতে যাবে এ রকম শিল্পী আছে চার থেকে পাঁচজন। ১৮ কোটি মানুষের জন্য তা যথেষ্ট নয়। এখন শিল্পীর বড় অভাব!’
মান্না, সোহেল চৌধুরী, দিতি, অমিত হাসান, আমিন খান, মিশা সওদাগরসহ জনপ্রিয় অনেক শিল্পী ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত হয়েছিলেন। বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন সংস্থার (বিএফডিসি) উদ্যোগে এর আগে ১৯৮৪, ১৯৮৮ ও ১৯৯০ সালে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

ধর্ষণকাণ্ডে বিয়ে ভাঙল মিঠুনপুত্রের

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক: ধর্ষণের মামলায় জামিন পেলেও শেষ মুহূর্তে বাতিল হয়ে গেল অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মহাক্ষয় চক্রবর্তী ওরফে মিমোর বিয়ে।
রোববার ভারতের তামিলনাড়ুর নীলগিরি জেলার উধগমন্ডলমের একটি হোটেলে বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। বিলাসবহুল এই হোটেলটি মিঠুনেরই।
হোটেলেটিতে তদন্তকারীরা উপস্থিত হওয়ার পরেই বিয়ে বাতিল করে দিয়ে ফিরে গেছে কনেপক্ষ।
আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কিছু দিন আগে এক নারীকে বিয়ের প্রতিশ্র“তি দিয়ে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগ ওঠে মিমোর বিরুদ্ধে।
কিন্তু তা সত্ত্বেও বিয়ে বাতিল করেননি কনে মদালসা শর্মার পরিবার। পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী আজই তাদের বিয়ে হওয়ার কথা ছিল।
মিমোর বিরুদ্ধে অভিযোগ, বিয়ের প্রতিশ্র“তি দিয়ে চার বছর ধরে এক নারীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক রেখেছিলেন তিনি।

অভিযোগকারী ওই নারী ভোজপুরি অভিনেত্রী। তার অভিযোগ, ধর্ষণের পর তিনি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে তাকে ওষুধ খাইয়ে গর্ভপাত করান মিঠুনের স্ত্রী যোগিতা বালি।
ছেলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার হুমকিও দেন যোগিতা। ওই অভিনেত্রী জানিয়েছেন, এর পরই ভয়ে মুম্বাই থেকে দিল্লি চলে যান তিনি, পরে রোহিণী থানায় মিমোদের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন।
এই সপ্তাহের শুরুতে দিল্লির এক আদালত জানায়, মিমো ও যোগিতার বিরুদ্ধে এফআইআর করার মতো যথেষ্ট প্রমাণ আছে।
বৃহস্পতিবার গ্রেফতারি এড়াতে মুম্বাই হাইকোর্টের আবেদন করেছিলেন মিমো ও তার মা। সেই আবেদন খারিজ করে বিচারপতি তাদেরকে দিল্লির সংশ্লিষ্ট আদালতে গিয়ে আবেদন জানাতে বলেন।
এরপর আজ দিল্লির আদালত এক লাখ টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে মা-ছেলের জামিন দেন।

মিঠুনের ছেলের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ

নিউজ মিডিয়া ২৪:ডেস্ক: দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মহাক্ষয় চক্রবর্তী মিমোর বিরুদ্ধে ধর্ষণ, প্রতারণাসহ জোরপূর্বক গর্ভপাত করানোর অভিযোগ করেছেন এক নারী।

সোমবার মহাক্ষয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করার নির্দেশ দিয়েছেন দিল্লির রোহিণী আদালত।

এনডিটিভির একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মিঠুন চক্রবর্তীর স্ত্রী যোগিতা বালির বিরুদ্ধেও ওই নারী সঙ্গে প্রতারণা ও মানসিক নির্যাতন করে গর্ভপাত করাতে বাধ্য করার অভিযোগ এনে মামলা দায়ের করার আদেশ দিয়েছেন আদালত।
সম্প্রতি এক নারী মিঠুনপুত্র মিমোর বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্কের অভিযোগ আনেন। তার দাবি, ২০১৫ সাল থেকে মহাক্ষয়ের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল। পরে ওই নারীকে বিয়ে করতে অস্বীকার করেন মিমো। এ সময় তাকে ফোন করে হুমকি দিয়েছে বলেও অভিযোগ করেন ওই নারী।
২০০৮ সালে ‘জিমি’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে পা রাখেন মিমো। পরবর্তীকালে ‘হন্টেড-থ্রিডি’, ‘দ্যা মার্ডার’-এর মত ছবিতে অভিনয় করেছেন। আগামী ৭ জুলাই পরিচালক, প্রযোজক সুভাষ শর্মার মেয়ে তেলেগু অভিনেত্রী মাদালসা শর্মার সঙ্গে বিয়ের কথা রয়েছে তার। ২০০৯ সালে তেলেগু ছবির মাধ্যমে অভিনয় জগতে পা রাখেন তিনি।

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও নিক জোনাসের মধ্যে শুধু বন্ধুত্ব নাকি প্রেম?

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক : প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও নিক জোনাসের মধ্যে শুধু বন্ধুত্ব নাকি প্রেম? এ নিয়ে হলিউড থেকে শুরু করে বলিউডে ব্যাপক জল্পনা-কল্পনা চলছে। তবে তাদের চলাফেরায় অন্যকিছুই আভাস দেয়। তাহলে কি নিকের সঙ্গেই গাঁটছড়া বাঁধবেন এ বলিউড নায়িকা? খবর: আনন্দবাজারের।
The webpage at https://www.youtube.com/embed/DPyVbPr5yqU might be temporarily down or it may have moved permanently to a new web address.

এসব জল্পনায় যখন সরগরম বলিউড, ঠিক সে সময়েই শোনা যাচ্ছে দ্রুত নাকি এনগেজমেন্ট করতে চলেছেন প্রিয়াঙ্কা ও নিক।

ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী, আগামী জুলাই অথবা আগস্টেই নাকি এনগেজমেন্ট করবেন নিক এবং প্রিয়াঙ্কা। সে কারণেই নিককে নিজের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে আলাপ করাতে ভারতে নিয়ে এসেছেন তিনি।

মা মধু চোপড়ার সঙ্গে নিকের আলাপ করে দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। এই মুহূর্তে ঘনিষ্ঠদের নিয়ে গোয়ায় সময় কাটাচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা-নিক। সেখানে বোন পরিণীতি চোপড়ার সঙ্গে মজার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন প্রিয়াঙ্কা।

তবে নিকের সঙ্গে তার সম্পর্ক নিয়ে এখনও পর্যন্ত প্রকাশ্যে মুখ খোলেননি প্রিয়াঙ্কা। শুধু সোশ্যাল মিডিয়ায় একে অপরের ছবি বা ভিডিও দেখে হার্ট শেপের ইমোজি পোস্ট করছেন। আর তা দেখেই তাদের সম্পর্ক নিয়ে জল্পনা তৈরি হচ্ছে।

গত বছর ‘মেট গালা রেড কার্পেট’- এ প্রথম প্রকাশ্যে একসঙ্গে দেখা যায় এই জুটিকে। রাল্ফ লাউরেনের পোশাকে নজর কেড়েছিলেন তারা। সে সময় প্রিয়াঙ্কা সম্পর্কে নিককে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি শুধু বলেছিলেন, ‘প্রিয়াঙ্কা ভালো মানুষ।’

অন্যদিকে প্রিয়াঙ্কা বলেছিলেন, ‘আমরা দুজনে রাল্ফের পোশাক পরব ঠিক করেছিলাম, সেটাই পরেছি। মজা হয়েছে।’

কখনও যুগলের ডিনার, কখনও বা নিছকই ছুটি কাটানো দেখে অনুরাগীরা সোশ্যাল মিডিয়ায় এই জুটিকে এখন ‘নিয়াঙ্কা’ বলেও ডাকছেন!

দীপিকা পাড়ুকোনের বাড়িতে অগ্নিকাণ্ড

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক: অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে বলিউড অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের বাড়িতে। মুম্বাইয়ের ওরলিতে একটি বিলাসবহুল আবাসনে থাকেন দীপিকা। তার ৩২ তলায় আজ দুপুর ২টা নাগাদ আগুল লাগে বলে খবর পাওয়া যায়। বিশাল মাপের আবাসন হওয়ায় এখানে বাসিন্দার সংখ্যাও অনেক। আগুনে মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক।

অগ্নিকাণ্ডের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় দমকলের বড় মাপের ছ’টি ইঞ্জিন। পুলিশ জানিয়েছে, এই আবাসনেই থাকেন বলিউড সেলেব দীপিকা পাড়ুকোন। এখানে তার অফিসও রয়েছে। আবাসন থেকে ৯০টি পরিবারকে পুলিশ নিরাপদে বাইরে বের করে এনেছে। তবে এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত কোনো হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

মুম্বাই পুলিশ বলছে, ঘটনাস্থলে দমকল এবং পুলিশ কর্মীরা আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছেন। তবে আগুন লাগার কারণ এখনো উদঘাটন করা যায়নি।

ভারতীয় গণমাধ্যম বলছে, আজ বুধবার আচমকাই বহুতলের ৩৪ তলায় আগুন ধরে যায়। দু’টি তলায় আগুন দ্রুত ছড়িয়ে পরে। ঘটনাস্থলে দমকলের ছ’টি ইঞ্জিন এবং বিশাল আকারের জলের ট্যাঙ্কার এনে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার কাজ চালানো হয়।

জানা গেছে, অগ্নিকাণ্ডের সময় দীপিকা ওই বাসভবনে ছিলেন না।

প্রিয়াঙ্কার পর এবার বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত লেখিকাকে হুমকি

নিউজ মিডিয়া ২৪: ঢাকা: মার্কিন টিভি সিরিজ কোয়ান্টিকো’র একটি বিতর্কিত পর্বকে ঘিরে হিন্দু জাতীয়তাবাদীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এবার আক্রমণ করছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত একজন আমেরিকান লেখককে। শর্বরী জোহরা আহমেদ নামের ওই লেখকে তারা ধর্ষণেরও হুমকি দিচ্ছেন।
বিতর্কিত পর্বটির কাহিনীতে হিন্দু জাতীয়তাবাদীদের একটি সন্ত্রাসী হামলার ষড়যন্ত্রের কথা উল্লেখ করা হয়েছিল। সেখানে প্রধান একটি চরিত্রে অভিনয় করেন বলিউড সুপারস্টার প্রিয়াঙ্কা চোপড়াও। এর আগে তিনিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন ও ওই চরিত্রটিতে অভিনয় করার জন্য দুঃখ প্রকাশ করে ক্ষমা চেয়েছিলেন।
এই কাহিনী রচনায় শর্বরী জোহরা আহমেদের কোনো ভূমিকা না থাকলেও হিন্দু জাতীয়তাবাদীরা তাকে গালাগালি করছে। যেসব লেখক কোয়ান্টিকোর কাহিনী লিখে থাকেন, শর্বরী জোহরা আহমেদ সেই টিমে ছিলেন শুধু প্রথম মওসুমের জন্য। মাত্র দুটো পর্বের কাহিনী রচনার সঙ্গে সরাসরি জড়িত ছিলেন তিনি। তার একটি তিনি একাই লিখেছিলেন, আর দ্বিতীয়টির দু’জন লেখকের তিনি ছিলেন একজন।
শর্বরী জোহরা আহমেদ বারবার তার টাইমলাইনে একথা উল্লেখ করার পরেও, হিন্দু জাতীয়তাবাদীরা তাকে আক্রমণ করেই যাচ্ছে। অনেকেই অভিযোগ করছে, শান্তিকামী হিন্দুদের বিরুদ্ধে ইসলামপন্থীদের প্রচারণার অংশ নিচ্ছেন তিনি।
টুইটারে একজন মন্তব্য করেছেন, কোয়ান্টিকোর কাহিনী লিখতে গিয়ে আপনি যে লিখেছেন ‘ভারতীয়রাই হামলার পরিকল্পনাকারী’, তখন কি আপনার ফ্যান্টাসি কল্পনার সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছিল? আপনার মনের গভীরে যে পক্ষপাতিত্ব, ঘৃণা, হিন্দুবিরোধী মনোভাব ও ইসলামের পক্ষ নেওয়ার বিষয়গুলো প্রোথিত আছে, সেকারণেই কি এরকম লিখেছেন?
শর্বরী জোহরা আহমেদ বলেন, তিনি আশা করছিলেন যে, যখন তারা জানতে পারবে এই পর্বটির সঙ্গে তার কোনো সম্পর্ক নেই, তখন তারা চুপ করে যাবেন। কিন্তু সেরকম কিছু হয়নি। আক্রমণের মাত্রা খুব দ্রুতই বেড়েছে। এসব এতোই হিংস্র হয়ে উঠেছে যে, যারা আমাকে সমর্থন করছেন তাদেরও তারা হামলা ও ধর্ষণের হুমকি দিচ্ছে।
হুমকিদাতারা তাকে ভারতবিরোধী ও হিন্দুবিরোধী প্রচারণায় একজন মুসলিম এজেন্ট হিসেবে দেখছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, তারা গুগলে সার্চ করে অথবা স্ক্রিনে যাদের নাম লেখা থাকে সেই তালিকা দেখে জেনে নিতে পারেন, আসল সত্যটা কী।
‘দ্য ব্লাড অফ রোমিও’ নামের এই পর্বটি প্রচারিত হয়েছিল ১ জুন। এতে দেখা যায়, অ্যালেক্স পারিশ নামের প্রধান চরিত্রটি একটি সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনাকে নস্যাৎ করে দিয়েছেন। ওই এজেন্টের চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।
কাশ্মীরে এক সম্মেলনের আগে এই হামলার পরিকল্পনা করা হয়েছিল এবং কাহিনীতে দেখানো হয়েছে, আসলে কয়েকজন হিন্দু জাতীয়তাবাদী এই পরিকল্পনা করেছিলেন। কিন্তু তারা দোষ দিতে চেয়েছিলেন পাকিস্তানিদের। সূত্র: বিবিসি।

জনপ্রিয় অভিনয় শিল্পী এটিএম শামসুজ্জামানের মৃত্যুর খবরটি গুজব, তারা আমাকে ৮/৯ বার মেরে ফেলেছে: এটিএম শামসুজ্জামান

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক : জনপ্রিয় অভিনয় শিল্পী এটিএম শামসুজ্জামান বলেছেন, ‘তারা আমাকে ৮/৯ বার মেরে ফেলেছে। সুনামধন্য চ্যানেল না জেনে, না শুনে কীভাবে এমন নিউজ করতে পারে, তা আমার মাথায় আসে না। তারা আমার বাসায় ফোন করে খোঁজ নিতে পারতেন।’ সোমবার (১১ জুন) রাতে টিভি চ্যানেল ও ফেসবুকে নিজের মৃত্যুর সংবাদ শুনে ফেসবুক লাইভে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় তিনি তার বাড়ির ফোন নম্বরটিও বলেন। সংবাদ মাধ্যমের দায়িত্বহীন এমন কর্মকাণ্ডে ক্ষোভ প্রকাশ করেন প্রবীণ এই অভিনেতা।

এটিএম শামসুজ্জামানের পরিবারের একজন সদস্য বলেন, ‘আমরা যারা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে খবর ছড়াই, তাদের সচেতন হওয়া জরুরি। এমন খবর ছড়ানো উচিৎ নয়। মৃত্যুর মতো বিষয় কিভাবে মানুষ মজা করতে পারে?’

ক্ষোভ প্রকাশ করে এটিএম শামসুজ্জামান বলেন, ‘এমন একটি খবর নিশ্চিত না হয়ে কেমন করে তারা প্রচার করে। আমার বাসার ফোন নম্বরে একটি কল দিলেই তো হতো।’

বিষয়টি নিয়ে ভীষণ মর্মাহতও হয়েছেন বরেণ্য অভিনেতা। এধরনের খবর প্রকাশের ক্ষেত্রে আরও দায়িত্বশীল হবার পরামর্শও দিয়েছেন তিনি। পুরান ঢাকায় নিজের বাড়িতে রয়েছেন এটিএম শামসুজ্জামান। তিনি বর্তমানে সুস্থ আছেন।

রোহিঙ্গাদের দেখতে বাংলাদেশে বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াংকা

নিউজ মিডিয়া ২৪:  ডেস্ক: মিয়ানমারে জাতিগত নিধনের মুখে বাংলাদেশের পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজারে যাচ্ছেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াংকা চোপড়া।
আজ সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা থেকে বিমানে কক্সবাজারের উদ্দেশে রওনা করেন তিনি।
এর আগে ভোরে যুক্তরাজ্য থেকে এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে ঢাকায় এসে একটি অভিজাত হোটেলে অবস্থান করেন প্রিয়াংকা।
সামাজিকমাধ্যম ইনস্টাগ্রামে নিজের অফিসিয়াল অ্যাকাউন্টে এ কথা জানান তিনি।
৩৫ বছর বয়সী এ তারকা জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের গুডভিল অ্যাম্বাসাডর।
এ হিসেবে প্রিয়াংকা রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করবেন। গত বছর তিনি সিরিয়ায় যুদ্ধে আক্রান্ত শিশুদের পাশে দাঁড়িয়ে ছিলেন।
কয়েক দিন আগে এক অনুষ্ঠানে রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শনের ইচ্ছার কথা জানান প্রিয়াংকা। শরণার্থীদের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের সবাইকে বুঝতে হবে এটি একটি বৈশ্বিক মানবিক সংকট, আঞ্চলিক নয়।’
ইউনিসেফের গুডভিল অ্যাম্বাসাডর প্রিয়াংকা বিভিন্ন সামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত।
শনিবার যুক্তরাজ্যের রাজপরিবারের প্রিন্স হ্যারির সঙ্গে মেগান মার্কলের বিয়ের অনুষ্ঠান হয়। এতে মেগানের বান্ধবী হিসেবে যোগ দেন প্রিয়াংকা। ওই অনুষ্ঠান শেষে বাংলাদেশ সফরে আসেন তিনি।
প্রিয়াংকা বলিউডের শীর্ষ নায়িকাদের অন্যতম। সাম্প্রতিক বছরগুলোতে হলিউডেও তিনি অভিনয় করে প্রশংসা কুড়াচ্ছেন।

শ্রীদেবীর মৃত্যু, সাবেক পুলিশ কর্তার মন্তব্যে তোলপাড়

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক: চলতি বছরের ফেব্র“য়ারিতে দুবাইয়ে ভাগ্নে মোহিত মারওয়ার বিয়েতে গিয়ে পরপারে পাড়ি জমান বলিউডের নন্দিত অভিনেত্রী শ্রীদেবী। আজও তার মৃত্যু যেন রহস্যই থেকে গেছে। মৃত্যুর সময় শ্রীদেবীর বয়স ছিল মাত্র ৫৪। ৫.৭ ইঞ্চি উচ্চতার শ্রীদেবী ৫.১ ইঞ্চি লম্বা বাথটাবে ‘দুর্ঘটনাবশত’ ডুবে গিয়ে মারা গেছেন তা আজও অনেকে মানতে রাজি নন। অনেকেই মনে করছেন তাকে হত্যা করা হয়েছে।
সে গুঞ্জনের পালে সম্প্রতি হাওয়া দিয়েছে ভারতের সাবেক সহকারী পুলিশ কমিশনার বেদ ভূষণের বক্তব্য। তিনি নিজে একটি প্রাইভেট তদন্ত সংস্থা পরিচালনা করেন। তাকে উদ্ধৃত করে ফ্রি প্রেস জার্নাল প্রতিবেদন ছাপিয়েছে, শ্রীদেবী মৃতুটা দুর্ঘটনা নয়, এটাকে পরিকল্পিত খুনের মতোই মনে হয়।
বেদ ভূষণ বলেন, ‘এটা খুবই সহজ কাউকে বাথটাবে জোর করে ডুবিয়ে মারা। এতে কোনো প্রমাণও থাকে না। সে দিক দিয়েই এ ঘটনাকে পরিকল্পিত খুন মনে হয়।’ সূত্র: ডেকান ক্রনিকল

‘শ্রীদেবীকে হত্যা করা হয়েছে’

নিউজ মিডিয়া ২৪: ডেস্ক: বলিউডের কিংবদন্তি অভিনেত্রী ভারতের কিংবদন্তি অভিনেত্রী শ্রীদেবী ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের একটি হোটেলে ৫৪ বছর বয়সে মারা যান। তার মৃত্যু নিয়ে ইতোমধ্যে নানা ধরনের রহস্য সৃষ্টি হয়েছে। মৃত্যুটি স্বাভাবিক না অস্বাভাবিক তা নিয়ে চলছে জল্পনা কল্পনা।
প্রথমে শোনা যায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে হোটেলের বাথটাবের পানিতে ডুবে মারা যান শ্রীদেবী। পরে দুবাই পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিলো, হৃদরোগে নয় দুর্ঘটনাবশত বাথটাবের পানিতে ডুবে মৃত্যু হয় তার। তবে শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে এবার প্রশ্ন তুলেছেন দিল্লি পুলিশের অবসরপ্রাপ্ত এসিপি বেদ ভূষণ। শ্রীদেবীকে পরিকল্পনা করে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি।
বেদ বলেন, কাউকে চাইলেই তো জোর করে বাথটাবে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেওয়া যায়। পানিতে ডুবিয়ে রেখে তার নিঃশ্বাস বন্ধ করে তাকে হত্যা করা সম্ভব। এতে করে কোনো প্রমাণ ছাড়াই একজন মানুষকে মেরে ফেলা যায়। শ্রীদেবীকেও পরিকল্পনা করেই হত্যা করা হয়েছে।
এক সাক্ষাৎকারে বেদ ভূষণ শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে দুবাই পুলিশের ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন বিষয়ে জানান, আরব আমিরাতের আইন ব্যবস্থার প্রতি আমাদের সম্মান রয়েছে। কিন্তু তারা শ্রীদেবীর ময়নাতদন্তের যে প্রতিবেদনটি জমা দিয়েছেন সেটি নিয়ে আমরা সন্তুষ্ট নই। ঠিক কি হয়েছিলো তার সঙ্গে আমরা সেটি জানতে চাই। এখনও অনেক প্রশ্নের উত্তর পাওয়া বাকি রয়েছে। আমরা দুবাই যাবো এবং সবকিছু পুনরায় তদন্ত করবো।’
শ্রীদেবীর মৃত্যুর তদন্ত করার জন্য তিনি দুবাইয়ের জুমেইরাহ এমিরেটস টাওয়ার্সে গিয়েছিলেন। কিন্তু হোটেলের ওই ঘরে তাকে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তাই তিনি পাশের ঘর থেকে সম্পূর্ণ ঘটনাটি বোঝার চেষ্টা করেছেন এবং সিদ্ধান্তে এসেছেন যে, ‘শ্রীদেবীর মৃত্যু পরিকল্পিত’।
এর আগে, শ্রীদেবীর মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন আইনজীবী সুনীল সিংহও। তিনি বলেছিলেন, ৫.৭ ফুট উচ্চতাবিশিষ্ট একজন কী করে ৫.১ লম্বা বাথটাবে ডুবে যাবেন!